পেঁয়াজ আমদানি শুরু

Print Friendly, PDF & Email

দিনাজপুর প্রতিনিধি : ভারত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ায় পাঁচ মাস সাত দিন পর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ মে) সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় ভারত থেকে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক দেশে আসার মধ্য দিয়ে আমদানি শুরু হয়। ভারতের মা ভারতি ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি প্রতিষ্ঠান ৩০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ রফতানি করেছে। বগুড়ার আরএসডি এন্টারপ্রাইজ পেঁয়াজগুলো আমদানি করেছে।

আমদানিকারকের প্রতিনিধি আহম্মেদ আলী বলেন, ‘ভারত সরকার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার পর আমদানিকারকরা আইপি ও এলসি খোলাসহ সব ধরনের কার্যক্রম শেষ করেন। কিন্তু ভারত সরকার রফতানি শুল্ক ৪০ শতাংশ আরোপ করায় আমদানি পেঁয়াজের দাম পড়ছে কেজিপ্রতি ৬৫-৭০ টাকা। কিন্তু দেশের বাজারে দাম আরও কম। ফলে আমদানিতে আগ্রহ নেই অনেকের।’

৩০ টন পেঁয়াজ আমদানিতে শুল্ক পরিশোধ করতে হয়েছে পাঁচ লাখ ৪৫ হাজার টাকা উল্লেখ করে আহম্মেদ আলী বলেন, ‘বাংলাদেশে শুল্ক পরিশোধ করতে হবে দুই লাখ টাকা। সব মিলিয়ে খরচ মিলছে না। যদি ভারত রফতানি শুল্ক প্রত্যাহার করে তাহলে আমদানি যেমন বাড়বে, তেমনি দেশে পেঁয়াজের দামও কমবে।’

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘদিন বন্ধের পর পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। এক ট্রাকে ৩০ মেট্রিক টন আমদানি হয়েছে। যেহেতু কাঁচাপণ্য গরমে দ্রুত পচে নষ্ট হয়ে যায়, সে কারণে কাস্টমস প্রক্রিয়া শেষে দ্রুত খালাস করে দেওয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, দেশে পেঁয়াজের সংকট ও দাম বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে গত বছরের ৭ ডিসেম্বর রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ভারত সরকার। এরপর থেকে আমদানি বন্ধ ছিল। গত ৪ মে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। এরপর হিলি স্থলবন্দরের ২০ আমদানিকারক ২৭ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি পান।