রোহিঙ্গা বোঝাই নৌকাডুবি, নিহতের আশঙ্কা ২৪

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : উপকূলে রোহিঙ্গা শরণার্থী একটি নৌকা ডুবে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অন্তত ২৪ জন নিহত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে থাইল্যান্ডের কাছে মালয়েশিয়ার উত্তরাঞ্চলের উপকূলে। খবর বিবিসির
নৌকার যাত্রীদের মধ্যে বেঁচে যাওয়া একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে মালয়েশিয়ার উত্তরাঞ্চলের কেদাহ এবং পেরলিস কোস্টগার্ডের প্রধান মোহাম্মদ জাওয়াউই আবদুল্লাহর বরাত দিয়ে ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ান, কাতার-ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরাসহ মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডের বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম খবর প্রকাশ করেছে।
মোহাম্মদ জাওয়াউই আবদুল্লাহ সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, যে অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে তিনি আরো ২৪ জনসহ একটি নৌকায় ছিলেন। নৌকা থেকে নেমে সাঁতরে তীরে পৌঁছান তিনি।
কোস্টগার্ড প্রধানের বরাত দিয়ে জানানো হয়, আটক করা ব্যক্তির নাম নুর হোসেন। তার বয়স ২৭। কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে দু’টি নৌকা ও একটি বিমানের মাধ্যমে উদ্ধার অভিযান চালানো হচ্ছে, তবে আরেকজন কর্মকর্তা এএফপিকে জানিয়েছেন এখন পর্যন্ত কোনো মরদেহ বা নৌকাডুবি থেকে বেঁচে যাওয়া কাউকে পাওয়া যায়নি।
রোহিঙ্গা শরণার্থীতে পরিপূর্ণ এই নৌকাটিকে সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার আচেহ্ বন্দরের কাছে আটক করা হয়েছে।
মালয়েশিয়ার কোস্টগার্ডের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকা জানিয়েছে, শনিবার ভোর রাতের দিকে ২৫ জন সাঁতরে দ্বীপের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করে যাদের মধ্যে শুধুমাত্র একজন তীরে পৌঁছাতে পারে।
রোহিঙ্গা শরণার্থী বহনকারী নৌকাটি কেন ডুবে গিয়েছিল বা সেটি উদ্ধার করা গেছে কিনা, সে সম্পর্কে কিছু জানায়নি কর্তৃপক্ষ। এই রোহিঙ্গা শরণার্থীরা কোথা থেকে মালয়েশিয়ার উপকূল পর্যন্ত গিয়েছিলেন, সেটিও জানানো হয়নি।
এপ্রিলের শুরুতে দুশো’রও বেশি মানুষ নিয়ে মালয়েশিয়ার উপকূল থেকে রোহিঙ্গা বোঝাই একটি নৌকা আটক করার কথা জানিয়েছিল দেশটির কোস্টগার্ড।