ফের স্মিথের ব্যাটে সওয়ার অস্ট্রেলিয়া

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : চলতি অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের তিনদিন শেষেও পরিষ্কারভাবে এগিয়ে নেই কোনো দল। প্রথম ইনিংসে লিড পাওয়ায় খানিক সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। অন্যদিকে দ্বিতীয় ইনিংসেও অস্ট্রেলিয়ানদের আশার প্রতীক হয়ে খেলে যাচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ।

তৃতীয় দিন শেষে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১২৪ রান। ইংলিশদের ৯০ রানের লিড পেরিয়ে অস্ট্রেলিয়ানরা এগিয়ে রয়েছে ৩৪ রানে, হাতে রয়েছে ৭ উইকেট।

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে স্মিথের ১৪৪ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংসের পরও অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয়ে যায় ২৮৪ রানে। জবাবে জো বার্নসের ১৩৩ রানে ভর করে ৩৭৪-এ থেমে যায় ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস। প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকরা পেয়ে যায় ৯০ রানের লিড।

জবাবে ইংলিশদের ইনিংসে জো বার্নস চোখ ধাঁধানো এক ইনিংস খেলেছেন, টেস্ট মেজাজের ব্যাটিং যাকে বলে! ৩১২ বল মোকাবেলায় ১৩৩ রানের ইনিংসে ইংলিশ ওপেনার বাউন্ডারি হাঁকান ১৭টি। তার সঙ্গে হাফসেঞ্চুরি পেয়েছেন জো রুট আর বেন স্টোকসও। রুট ৫৭ আর স্টোকস ৫০ রান করেন। ১৩৫.৫ ওভারে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে অলআউট হয় ৩৭৪ রানে।

তবে ইংলিশদের ইনিংসটা আরও আগেই থামতে পারতো। ৩০০ রানেই ৮ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল ইংলিশরা। সেখান থেকে দলকে আরও অনেকটা দূর টেনে নেন লোয়ার অর্ডারের ক্রিস ওকস আর স্টুয়ার্ট ব্রড। ব্রড ২৯ রানে আউট হন। ওকস শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৩৭ রানে।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৩টি করে উইকেট নেন প্যাট কামিন্স আর নাথান লিয়ন। দুটি করে উইকেট জেমস প্যাটিনসন আর পিটার সিডলের।

প্রায় একশ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই ব্রডের শিকার হয়ে ফিরেছেন ডেভিড ওয়ার্নার (৮)। ক্যামেরন বেনক্রফটও (৭) ফিরে যান অল্পেই। মাত্র ২৭ রানে ২ উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসের পুনরাবৃত্তির শঙ্কায় পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

তৃতীয় উইকেটে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন উসমান খাজা ও স্টিভেন স্মিথ। দুজন মিলে যোগ করেন ৪৮ রান। দলীয় ৭৫ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪০ রানে আউট হয়ে যান খাজা। তবে ট্রাভিস হেডকে সঙ্গে নিয়ে দিনের বাকি অংশ পার করেন স্মিথ। শেষপর্যন্ত ৩ উইকেটেই ১২৪ রানে দিনশেষ করে অস্ট্রেলিয়া। স্মিথ ৪৬ এবং হেড ২১ রানে অপরাজিত রয়েছেন।