৫ দফা প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন সম্ভব

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, জাতিসংঘের ৭২তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উত্থাপিত ৫ দফা প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসন সম্ভব। কাতারের দোহায় শেরাটন কনভেনশন সেন্টারে ১৪০তম আইপিইউ এর ১৪০তম সম্মেলনের আলোচ্য সূচিতে জরুরি বিষয় অন্তর্ভূক্ত করার অনুরোধ বিবেচনা শীর্ষক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ রবিবার এ তথ্য জানানো হয়। স্পিকার বলেন, ‘মাদার অব হিউম্যানিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার সহায়তায় কূটনৈতিক প্রক্রিয়ায় দ্বি-পাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, শান্তিপূর্ণ ও স্থায়ী প্রত্যাবাসন চায় বাংলাদেশ। এক্ষেত্রে আইপিইউ সদস্য রাষ্ট্রসমূহের রোহিঙ্গা সমস্যার দ্রুত ও টেকসই সমাধানে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।’

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘এ কারণে বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ গণতান্ত্রিক সংগঠন আইপিইউ’তে রোহিঙ্গার বিষয়টিকে ইমারজেন্সি আইটেম হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। ইন্দোনেশিয়া সারা বিশ্বের মুসলিম মাইনরিটিদের অধিকার রক্ষার যে এজেন্ডা উপস্থাপন করেছে তিনি তার সঙ্গে রোহিঙ্গা সমস্যাকেও ইমারেজন্সি এজেন্ডাভূক্ত করার দাবি জানান।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কাতারের শুরা কাউন্সিলের স্পিকার আহমেদ বিন আবদুল্লা বিন জায়িদ আল মাহমুদ। পিউআইসির জেনারেল সেক্রেটারি সেনেগালের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ কোহরাচি নিয়াস এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের সদস্য সাংসদ আবদুস সোবহান মিয়া, এম এ লতিফ, জুয়েল আরেং, আব্দুস সালাম মুর্শেদী এবং শেখ তন্ময় সভায় অংশ নেন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী আইপিইউ এর ফোরাম অব উইমেন পার্লামেন্টারিন্স এ বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। ফোরাম ২৯ তম সেশনের জন্য কাতারের শুরা কাউন্সিলের সদস্য রিম আল মানসুরিকে সভাপতি নির্বাচন করে।

অনুষ্ঠানে আইপিইউ সভাপতি গ্যাব্রিয়ালা কিউবাস ব্যারন, কাতারের শুরা কাউন্সিলের স্পিকার আহমেদ বিন আবদুল্লা বিন জায়িদ আল মাহমুদ, সেক্রেটারি জেনারেল মার্টিন চুংগং উপস্থিত ছিলেন।