চলতি অর্থবছরে জিডিপি ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পেতে পারে : এডিবি

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাংলাদেশ মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পেতে পারে বলে মনে করছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)।
ব্যক্তি চাহিদা, ব্যক্তিখাতে ভোগের চাহিদা, বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বাড়া, রফতানি আয় ও রেমিটেন্স প্রবাহে ইতিবাচক ধারা অব্যহত থাকা এবং অবকাঠামো খাতে সরকারের ধারাবাহিকভাবে চলা উন্নয়নে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। একই সময়ে মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে বলে জানানো হয়।
আজ বুধবার এডিবি ঢাকার কার্যালয়ে ‘এশিয়ান উন্নয়ন আউটলুক ২০১৯’র প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ একথা জানান। এডিবি ঢাকা অফিসের সিনিয়র অর্থনীতিবিদ সন চ্যাং হং সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।বাংদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির যে প্রাক্কলন এডিবি করেছে, তা সরকারের হিসাবের চেয়ে কিছুটা কম হলেও এডিবির আগের পূর্বাভাসের চেয়ে অনেকটা বেশি। অর্থবছরের প্রথম আট মাসের (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) তথ্য বিশ্লেষণ করে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো যে প্রাক্কলন করেছে, তাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছর শেষে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে রেকর্ড ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ।
গত অর্থবছর ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পাওয়ার পর ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে ৭ দশমিক ৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ঠিক করে সরকার। তবে গতবছর সেপ্টেম্বরে এডিবির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রবৃদ্ধির হার এবার হতে পারে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ। সেই অবস্থান থেকে এডিবি সরে আসছে কেন জানতে চাইলে মনমোহন প্রকাশ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তাদের আগের হিসাব ছিল তিন মাসের তথ্যের ভিত্তিতে। এখন নয় মাসের তথ্যে দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি বদলে গেছে।
তাছাড়া চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দ্বন্দ্বের কারণেও বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ কিছু পণ্যের রফতানি বেড়েছে জানিয়ে এডিবির আবাসিক প্রতিনিধি বলেন, এ বিষয়টিও প্রবৃদ্ধি বাড়াতে ভূমিকা রাখছে।