এখনো ভিসির বাসভবনের সামনে ডাকসু ভিপিসহ শিক্ষার্থীদের অবস্থান

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে এক শিক্ষার্থীকে মারধর ও ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরসহ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে রাতভর ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করছেন নুরসহ অন্যান্য শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার সকালেও তারা সেখানেই অবস্থান করছেন।

সকালে ভিসি চত্বরে গিয়ে দেখা যায়, ভিপি নুরসহ শিক্ষার্থীরা শুয়ে আছেন। বলছেন, ‘আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত অবস্থান অব্যাহত থাকবে।’

এর আগে রাত পৌনে ১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিয়ে ভিপি নুরুল হক নুরসহ প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করার অনুরোধ জানান প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী। কিন্তু শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের আশ্বাসে ভরসা রাখেননি। তারা ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানকে ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার দাবি জানান। অনুরোধ না রাখায় এক পর্যায়ে রাত ২টার দিকে প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী চলে যান।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টা থেকে অবস্থান শুরু করেন তারা। ডাকসুর ভিপি নুর বলেন, ‘আজকে রাতের মধ্যে প্রত্যেক হলের বহিরাগত এবং অছাত্রদের বের করতে হবে। নয়তো আমরা এখান থেকে সরব না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সন্ত্রাসীদের বিচার চাই। সেই সঙ্গে অছাত্রদের হল থেকে বের করতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত তাদের বের না করা হবে এবং হামলার বিচার না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত অবস্থান করব।’

এদিকে হামলার ঘটনায় আহত হয়েছেন ছাত্র ফেডারেশনের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজীর। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়েছে।

এর আগে সলিমুল্লাহ মুসলিম হল প্রাধ্যক্ষ বরাবর অভিযোগ দায়ের শেষে বের হওয়ার সময় হামলার শিকার হন নুর ও তার সহপাঠীরা। হলের ছাত্র ফরিদ হাসানকে মেরে রক্তাক্ত করার ঘটনা ও নিজেদের অবরুদ্ধ করার ঘটনায় প্রভোস্টের কাছে অভিযোগ দায়ের শেষে বের না হতেই তাদের ওপর এই হামলার ঘটনা ঘটে। তাদের অভিযোগ এ হামলা করেছে ছাত্রলীগ। হামলার স্বীকার হোন প্রোভোস্টও। তার ওপরও ডিম নিক্ষেপ করা হয়।

এদিকে শিক্ষার্থীকে মারধর ও ভিপি নুরুল হক নুরসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনা তদন্তে মঙ্গলবার সলিমুল্লাহ মুসলিম হল প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।