ট্রাম্পের আইনজীবীর দপ্তর ও হোটেল কক্ষে এফবিআইয়ের তল্লাশি

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দীর্ঘদিনের ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল ডি কোহেনের দপ্তরে ও হোটেল রুমে তল্লাশি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (এফবিআই)। স্থানীয় সময় সোমবার ওয়াশিংটনের রকেফেলার সেন্টার ও পার্ক অ্যাভিনিউতে ওই হোটেল কামরায় তল্লাশি চালায় সংস্থাটি। সেখান থেকে তারা ব্যবসার নথিপত্র, ই-মেইল,পর্নো তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে সম্পর্ক এবং তা গোপন রাখতে অর্থ দেওয়া সহ বিভিন্ন বিষয়ের নথিপত্র জব্দ করা হয়।

আজ মঙ্গলবার নিউইয়র্ক টাইমস ও বিবিসির খবরে এসব তথ্য জানানো হয়।

এ ঘটনার পর এক ব্রিফিংয়ে বলা হয় মাইকেল কোহেন ব্যাংক জালিয়াতি করে থাকতে পারেন। তাই এ অভিযান। এফবিআইয়ের ব্রিফিংয়ের কয়েক ঘণ্টা পর ক্ষোভে ফেটে পড়েন ট্রাম্প।

সিরিয়ায় শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রসঙ্গে হোয়াইট হাউসে জ্যেষ্ঠ সামরিক কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করেন ট্রাম্প। এর আগে এফবিআইয়ের এ তল্লাশিকে তিনি ‘অপমানজনক পরিস্থিতি’ এবং ‘সত্যিকার অর্থে আমাদের দেশের ওপর হামলা’ বলে মন্তব্য করেন।

বিশেষ কাউন্সেল রবার্ট ম্যুলারের ‘অনুরোধে’ এফবিআই এ তল্লাশি করেছে। এফবিআই–এর সাবেক প্রধান রবার্ট ম্যুলার যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ তদন্তে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

ট্রাম্প এই তল্লাশি অভিযানের সমালোচনা করে ম্যুলারের টিমকে ‘সবচেয়ে বেশি পক্ষপাতদুষ্ট লোকের দল’ বলে অভিহিত করেন।

মাইকেল কোহেনের আইনজীবী স্টিফেন এম রায়ান এক বিবৃতিতে বলেন, ‘নিউইয়র্কের সাদার্ন ডিস্ট্রিক্টের ইউএস অ্যাটর্নির কার্যালয় কয়েক দফা তল্লাশি ওয়ারেন্ট কার্যকর করেছে এবং আমার মক্কেল মাইকেল কোহেন ও তাঁর মক্কেলদের মধ্যকার বিশেষ গোপন নথিপত্র জব্দ করেছে।’

রায়ান বলেন তাঁকে ফেডারেল আইনজীবীরা জানিয়েছেন এ তল্লাশি অংশত স্পেশাল কাউন্সেলরের দফতরের অনুরোধে করা হয়েছে। তিনি এই অভিযানকে পুরোপুরি ‘অযাচিত ও অপ্রয়োজনীয়’ বলে উল্লেখ করেছেন।

পর্নো তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে সম্পর্ক এবং তা গোপন রাখতে অর্থ দেওয়ার বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করেছেন ওই পর্নো তারকার আইনজীবী। এ বিষয়ে তিনি গত রোববার আদালতে নথিপত্র দাখিল করেন।

ওই তারকার প্রকৃত নাম স্টেফানি ক্লিফোর্ড। তাঁর আইনজীবী দাবি করেছেন, ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে চুপ থাকতে গোপন চুক্তি অনুযায়ী ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দেওয়া হয় ওই পর্নো তারকাকে।

ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল কোহেন বরাবরই দাবি করে আসছেন, তিনি নিজের পকেট থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন। ওই আইনজীবী ব্যক্তিগত সালিস নিষ্পত্তির মাধ্যমে এই বিষয়ের সুরাহা চান। তবে বরাবরই বলে আসছেন তিনি ওই পর্নো তারকাকে অর্থ দেওয়ার বিষয়ে অবহিত নন। আর হোয়াইট হাউস স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে ট্রাম্পের শারীরিক সম্পর্কের বিষয়টি বরাবরই অস্বীকার করে আসছে।

Be the first to comment on "ট্রাম্পের আইনজীবীর দপ্তর ও হোটেল কক্ষে এফবিআইয়ের তল্লাশি"

Leave a comment

Your email address will not be published.




20 − 13 =