মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার জয়

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : সামনেই রোমার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। সেই ম্যাচের আগে লিগে পুঁচকে লেগানেসের বিপক্ষে মুখোমুখি হয়েছিল বার্সা। রিয়াল মাদ্রিদকে কোপা দেল রে থেকে বিদায় করে দেয়া লেগানেসের বিপক্ষে জিততে তেমন অসুবিধা হয়নি বার্সেলোনার। মেসির অনবদ্য হ্যাটট্রিকে ৩-১ গোলে লেগানেসকে হারাল বার্সেলোনা। এর ফলে লিগে টানা ৩৮ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড স্পর্শ করল বার্সেলোনা। ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে রিয়াল সোসিয়াদাদ লা লিগায় টানা ৩৮ ম্যাচ অপরাজিত ছিল।

মেসি, সুয়ারেজ, দেম্বেলে, কৌতিনহো সবাইকে একাদশে রেখে শক্তিশালী একাদশই নামান কোচ ভালভার্দে। ১৭ মিনিটে কৌতিনহোর শট রুখে দেন লেগানেসের গোলকিপার। ১৮ মিনিটে গোলের সহজ একটি সুযোগ মিস করেন উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। ২৭ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে মেসিকে ফাউল করলে ফ্রি কিক পায় বার্সা। সেই ফ্রি কিক থেকে অসাধারণ এক গোল করেন বার্সেলোনার প্রাণভোমড়া লিওনেল মেসি।

ফ্রি কিকে এই নিয়ে লা লিগায় বর্তমান মৌসুমে ৬টি গোল করলেন তিনি। ২০০৬-০৭ মৌসুমে রোনালদিনহো সর্বশেষ এক মৌসুমে লিগে ৬টি গোল করেছিলেন। এই গোলের ঠিক ৩ মিনিট পর আবারও মেসির গোল। এবার কৌতিনহোর কাছ থেকে বল পেয়ে ডি বক্সের সামান্য ভেতর থেকে জোরালো শটে লা লিগার ২৮তম গোলটি করেন তিনি। ওই দুই গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বার্সা।

বিরতি থেকে ফিরেও চলে বার্সার আধিপত্য। কিন্তু বলার মতো কোন সুযোগই সৃষ্টি করতে পারছিল না বার্সেলোনার ফুটবলাররা। উল্টো ৬৮ মিনিতে লেগানেসের মরক্কান ফুটবলার এল জাহি গোল করলে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় টেবিলের ১৩ নাম্বার দলটি। ৮১ মিনিটে আরও একবার গোলকিপারকে একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন লুইস সুয়ারেজ। কিন্তু ব্যর্থ হননি লিওনেল মেসি। ৮৭ মিনিটে দেম্বেলের কাছ থেকে বল পেয়ে নিজের ক্যারিয়ারে ৪৫তম হ্যাটট্রিকটি পূরণ করেন লিওনেল মেসি। লিগে এটি তার ২৯তম গোল। ৩-১ গোলের জয়ে দ্বিতীয়তে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের থেকে ১২ পয়েন্টে এগিয়ে রইল বার্সা।

Be the first to comment on "মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার জয়"

Leave a comment

Your email address will not be published.




seventeen + five =