বরিশালে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় পুলিশের আট সদস্য ক্লোজড

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের আট সদস্য কর্তৃক সাংবাদিক সুমন হাসানকে হাতকড়া পরিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের ঘটনায় ডিবি পুলিশের আট সদস্যকে মঙ্গলবার রাতে ক্লোজড করা হয়েছে। এছাড়াও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠণ করে রিপোর্ট অনুযায়ী বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) গোলাম রউফ।
মঙ্গলবার রাতে সাংবাদিককে নির্যাতনের ঘটনায় ডিবি পুলিশের টিমে থাকা ডিবির এসআই আবুল বাশার, এএসআই আক্তার হোসেন, স্বপন, কনস্টবল রাশেদ, হাসান, রহিম, সাইফুল ইসলাম ও মাসুদকে ক্লোজড করে লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।
এদিকে সাংবাদিককে নির্যাতনের ঘটনায় বরিশালের সাংবাদিকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। গুরুত্বর আহত সাংবাদিক সুমন হাসানকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
সূত্রমতে, মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর দক্ষিণ চকবাজারের পুরাতন বিউটি হলের সামনের একটি বাসায় অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। খবর পেয়ে সাংবাদিক সুমন হাসান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অভিযান শেষে ডিবি পুলিশের সদস্যদের কাছে নিজের পরিচয় দিয়ে অভিযান সম্পর্কে জানতে চায়। সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ডিবির আটজন সদস্য মিলে সুমনকে বেধড়ক মারধর করে অন্ডকোষ চেঁপে ধরে। এতে সুমন অজ্ঞান হয়ে পরে। পরবর্তীতে ডিবি কার্যালয়ে গিয়ে জ্ঞান ফিরলে সুমনের হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে পুনরায় মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়।
খবর পেয়ে বরিশালের সিনিয়র সাংবাদিকরা উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রউফকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরবর্তীতে সুমনের সারাশরীরে আঘাতের চিহ্ন ও তার কাছে নির্যাতনের কথা শুনে উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রউফ এবং উত্তম কুমার পাল সাংবাদিক মহলের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। তারা নির্যাতনের সাথে জড়িত ডিবি পুলিশের এসআই আবুল বাশার ও তার টিমের আটজনকে ক্লোজড করে তদন্ত কমিটি গঠণ করেন। কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও উপ-পুলিশ কমিশনার সাংবাদিকদের আশ্বস্ত করেছেন।
নির্যাতনের শিকার বেসরকারী টেলিভশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজের ক্যামেরাপার্সন সাংবাদিক সুমন হাসান বলেন, ডিবি পুলিশের সদস্যরা আমার বাসায় মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়াসহ ক্রসফায়ারের হুমকি দেয়। এমনকি ডিবি পুলিশ আমার অন্ডকোষ চেঁপে ধরলে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। তারপর আমাকে ডিবি অফিসে নিয়ে বিভিন্ন কায়দায় নির্যাতন করেছে।
এদিকে সুমনকে নির্যাতনের খবর পেয়ে বরিশালের সিনিয়র সাংবাদিকরা ডিবি অফিসে গেলে কতিপয় ডিবি পুলিশ সদস্যর সাথে সেখানে বসেও সাংবাদিকদের ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে ডিবিসি’র বরিশাল ব্যুরো চীফ অপূর্ব অপুসহ কয়েকজন সংবাদকর্মীকে লাথি, কিল-ঘুষিও দেয়া হয়। যা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সিসি ক্যামেরার ফুটেজেও প্রমান পেয়েছেন। এতো ঘটনার পরেও সবকিছুই অস্বীকার করেছেন ডিবি পুলিশের ওই টিমের প্রধান এসআই আবুল বাশার। তিনি জানিয়েছেন, সুমনের শরীরে কোন হাত দেয়া হয়নি। উল্টো সুমন আমাদের মারধর করেছে।
বরিশাল মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের সহকারী কমিশনার নাসির উদ্দিন মল্লিক জানান, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। প্রাথমিকভাবে নির্যাতনের প্রমান পাওয়ায় এসআই আবুল বাশারসহ তার টিমের আট সদস্যকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে।
এ ঘটনায় বরিশালের সাংবাদিকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাব, মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাব, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি, বরিশাল টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, বরিশাল ফটো সংবাদিক ঐক্য পরিষদ, গৌরনদী উপজেলা প্রেসক্লাবসহ সাংবাদিক সংগঠনগুলো সাংবাদিককে অমানুষিক নির্যাতনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

Be the first to comment on "বরিশালে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় পুলিশের আট সদস্য ক্লোজড"

Leave a comment

Your email address will not be published.




two × four =