তুমব্রু সীমান্ত থেকে ভারী অস্ত্র সরিয়েছে মিয়ানমার

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী যেসব ভারী অস্ত্র নিয়ে অবস্থান নিয়েছিল তারা সেগুলো সরিয়ে নিয়েছে। আগের চুক্তি অনুযায়ী আগামী ২৭ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে যৌথ টহল দেবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

শনিবার রাজধানী তেজগাঁওয়ে খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের একটি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা শিগগিরই দেশে ফিরে যেতে পারবেন। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত রয়েছে। মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক চাই, তবে বছরের পর বছর রোহিঙ্গাদের এখানে রাখার কোনো মানে হয় না।

গত কয়েকদিন ধরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারের হঠাৎ ভারী অস্ত্র ও অতিরিক্ত সৈন্য প্রবেশ করেছে। তুমব্রু সীমান্তে অবস্থানরত প্রায় ৬ হাজার রোহিঙ্গাকে ভয় দেখাতেই তাদের এ অবস্থান বলে ধারণা করা হচ্ছে। যে কোনো ধরনের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি এড়াতে টেকনাফ সীমান্তজুড়ে অবস্থান নেয় বিজিবি ও কোস্ট গার্ড।

এ বিষয়ে শুক্রবার বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (টেকনাফ-২) লে. কর্নেল আসাদুজ্জামান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, তুমব্রুসহ টেকনাফ উপজেলা সীমান্তের হোয়াইক্যং, উনচিপ্রাং, ঝিমংখালী, খারাংখালী, হ্নীলা, লেদা, নোয়াপাড়া, দমদমিয়া, টেকনাফ সদর, নাজির পাড়া, সাবরাং ও শাহপরীরদ্বীপ এলাকা সীমান্তে বসবাসরত নাগরিকদের নাফ নদীতে মাছ ধরা ও চলাচলে সীমাবদ্ধতা বজায় রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Be the first to comment on "তুমব্রু সীমান্ত থেকে ভারী অস্ত্র সরিয়েছে মিয়ানমার"

Leave a comment

Your email address will not be published.




four × 5 =