সিলেটে পাথর কোয়ারিতে আরও ২ মরদেহ

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : সিলেটের কোম্পানিগঞ্জের ভোলাগঞ্জে পাথর কোয়ারিতে উদ্ধার অভিযান চালিয়ে আরও দুই পাথর শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে মাটিচাপায় শ্রমিক নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪ জনে দাঁড়াল। এতে আহত হয়েছেন আরও তিনজন। অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের সঙ্গে জড়িত থাকায় আব্দুর রউফ নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মাটিচাপায় নিহতরা হলেন, সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জের কলকটা গ্রামের আতাবুর রহমান (৩০), সুনামগঞ্জের মুরাদপুরের মতিউর রহমান (৩০) রুহুল মিয়া (২২) ও ছলেরবন গ্রামের আশিক আলী (৩০)। আহত হয়েছেন রুহেল (১৮), রফিকুল (১৬) ও ফিরোজ আলী (৪৫)। এদের মধ্যে ফিরোজ আলীর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সামসুল আলম এ তথ্য নিশ্চত করে জানান, রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ভোলাগঞ্জের হাজিরডেগনার সীমান্ত এলাকায় একদল লোক অবৈধভাবে ৬০-৭০ ফুট গর্ত করে পাথর তুলছিলেন। এক পর্যায়ে গর্ত ধসে মাটি চাপা পড়েন ৭-৮ জন শ্রমিক। সঙ্গে সঙ্গে ২ জন নিহত হন। তবে আজ বেলা ১১টার দিকে কোয়ারিতে অভিযান চালিয়ে আরো দুটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধার অভিযান এখনও চলছে। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) দিলিপ নাথ জানান, রবিবার রাতে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সকালে আরও দুটি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুটি হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

এদিকে এ দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে স্থানীয়রা ধারণা করছেন। দুর্ঘটনাকবলিত গর্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আজমদের মালিকানাধীন বলে জানা গেছে।

Be the first to comment on "সিলেটে পাথর কোয়ারিতে আরও ২ মরদেহ"

Leave a comment

Your email address will not be published.




seventeen − 13 =