এফবিআইকে এক হাত নিলেন ট্রাম্প

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় গত বুধবার একটি স্কুলে গুলির ঘটনা ঠেকাতে ব্যর্থতার দায়ে এফবিআইকে এক হাত নিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, সংস্থাটির কাছে আগে থেকেই ওই হামলাকারী সম্পর্কে সন্দেহ করার মতো তথ্য ছিল, কিন্তু এফবিআই তা আমলে নেয়নি।

১৯ বছরের তরুণ নিকোলাস ক্রুজ গত বুধবার ভালোবাসা দিবসে পার্কল্যান্ডের মার্জোরি স্টোনম্যান ডগলাস উচ্চবিদ্যালয়ে গুলি চালিয়ে ১৭ জনকে হত্যা করেন। এই অভিযোগে ক্রুজকে আদালতে নেওয়া হয়েছে। তদন্তকারীদের কাছে তিনি ওই হামলা চালিয়েছেন বলে স্বীকারোক্তি দেন। তাঁর কাছে থাকা ব্যাগে প্রচুর গোলাবারুদ ছিল বলেও জানান। ২০১২ সালের পর যুক্তরাষ্ট্রে এটি ভয়াবহ হামলার ঘটনা।
মার্জোরি স্টোনম্যান ডগলাস উচ্চবিদ্যালয়ে হামলাকারী নিকোলাস ক্রুজ (১৯) ওই বিদ্যালয় থেকে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন শৃঙ্খলাজনিত কারণে। তিনি বর্তমানে ব্রোয়ার্ড কাউন্টি পাবলিক স্কুলের ছাত্র

রোববার এক টুইট বার্তায় ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘খুবই দুঃখের বিষয় যে, ফ্লোরিডায় স্কুলে ওই হামলাকারীর দেওয়া সব ধরনের সংকেত ধরতে ব্যর্থ হয়েছে এফবিআই। যা গ্রহণযোগ্য নয়। তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রচারণায় রুশ আঁতাত প্রমাণ নিয়ে ব্যস্ত…এখানে কোনো আঁতাত ছিল না। তাদের উচিত নিজের কাজে ফিরে যাওয়া এবং আমাদের গৌরবান্বিত করা।’

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের নির্বাচনে হস্তক্ষেপের কারণ দেখিয়ে ১৩ রুশ নাগরিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে এফবিআই। তাঁদের মধ্যে তিনজনের বিরুদ্ধে তথ্য জালিয়াতি এবং পাঁচজনের বিরুদ্ধে পরিচয় গোপন করে রাশিয়ায় তথ্য সরবরাহের অভিযোগ তোলা হয়েছে।

মার্কিন নির্বাচনে রুশ আঁতাতের তদন্তের দায়িত্ব থাকা স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলার ১৩ রুশ নাগরিকের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ গঠনের কথা জানান। এর মধ্যে তিন রুশ প্রতিষ্ঠানের কর্তাব্যক্তিরাও আছেন।
বিবিসির খবরে জানা যায়, গত বছর ইউটিউবের একটি পোস্টে হামলাকারী কিশোর নিকোলাস ক্রুজ মন্তব্য করেছিলেন, তিনি পেশাদার হামলাকারী হবেন। এফবিআই স্বীকার করেছে, ইউটিউবের একজন ব্যবহারকারী ওই পোস্ট সম্পর্কে তাঁদের সতর্ক করেছিলেন। বেন বেননাইট নামে ওই ব্যবহারকারী বলেন, তিনি এফবিআইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। তাঁদের সঙ্গে পোস্টের ব্যাপারে ২০ মিনিট কথা হয়েছিল।

এফবিআই বলছে, তাঁরা ইউটিউবের ওই মন্তব্য নিয়ে তদন্ত করেছিলেন। কিন্তু কে এই পোস্ট দিয়েছিলেন তা শনাক্ত করতে পারেননি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্রুজ অস্থির চিত্তের তরুণ এবং আগ্নেয়াস্ত্র ভালোবাসতেন বলে জানিয়েছেন তাঁর সাবেক সহপাঠীরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আধুনিক সব অস্ত্র হাতে তিনি ছবি পোস্টও করেন।

ক্রুজ সহপাঠীদের হুমকি দিয়েছিলেন বলে জানান ওই বিদ্যালয়ের গণিতের শিক্ষক জিম গার্ড। মিয়ামি হেরাল্ডকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ক্রুজ যেন বিদ্যালয়ে কিছু নিয়ে ঢুকতে না পারেন, সে ব্যাপারে গত বছর আমরা সতর্ক করেছিলাম। গত বছর শিক্ষার্থীদের হুমকি দেওয়ায় সমস্যা সৃষ্টি হয় এবং তাঁকে ক্যাম্পাস ত্যাগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।’

Be the first to comment on "এফবিআইকে এক হাত নিলেন ট্রাম্প"

Leave a comment

Your email address will not be published.




4 × four =