‘স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন নাকি করেননি, পরিষ্কার করুন’

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবি প্রতিহত করতে আঞ্চলিক সরকারটির রাজনৈতিক স্বায়ত্তশাসনের অধিকার বাতিল করে কেন্দ্রের অধীনে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাহয়। গতকাল বুধবার তিনি এ উদ্যোগ নিয়ে কাতালান নেতার উদ্দেশে বলেন, ‘স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন নাকি করেননি, পরিষ্কার করুন।’ স্পেনের সংবিধানের ১৫৫ ধারা সক্রিয় করার জন্য এটি জরুরি পদক্ষেপ। এই ধারাবলে মাদ্রিদ আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসন বাতিল করার ক্ষমতা রাখে।

মঙ্গলবার কাতালোনিয়ার নেতা কার্লোস পুজেমন স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র সই করেছেন। কিন্তু তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা না দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা ও সমঝোতার প্রস্তাব দেন। আঞ্চলিক পার্লামেন্টে বহুল প্রতীক্ষিত ভাষণে পুজেমনে স্বাধীনতার ঘোষণা করবেন বলে আশঙ্কা ছিল।

স্পেনের প্রধানমন্ত্রীর মতে, পুজেমন ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিভ্রান্তি’ তৈরি করেছেন। কাতালোনিয়া সংকট নিয়ে স্পেন সরকারের পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনার জন্য জরুরি মন্ত্রিসভা বৈঠকের পর রাহয় এ কথা বলেন।

স্পেনের সিনেট জানিয়েছে, ১৫৫ ধারা সচলের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু কাতালান নেতার কাছ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া না পাওয়া পর্যন্ত আইনি প্রক্রিয়া শুরু করা হবে না। স্পেনের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেটে প্রধানমন্ত্রী রাহয়ের সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র বলেছে, কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করতে আর্টিকেল ১৫৫ সচলের উদ্যোগ নিতে অনুরোধ করা হয়েছে। কিন্তু কখনো এ ধারার প্রয়োগ হয়নি। এটি কী করে কাজ করে তা নিয়ে মতপার্থক্য রয়েছে।

সংবিধানের ধারা সক্রিয় করার পরপরই স্পেনের প্রধানমন্ত্রী আগাম আঞ্চলিক নির্বাচনের ডাক দিতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এএফপির খবরে বলা হয়েছে, কাতালোনিয়ার নেতা কার্লোস পুজেমনের সই করা স্বাধীনতার বিবৃতি প্রত্যাখ্যান করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই সঙ্গে কাতালান নেতার আলোচনার প্রস্তাব নাকচ করেছে তারা। স্পেনের উপপ্রধানমন্ত্রী বলেন, পুজেমন স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলটিকে অনিশ্চয়তার দিকে নিয়ে যাচ্ছেন।

মাদ্রিদের সাংবিধানিক আদালতের নিষেধ উপেক্ষা করে ১ অক্টোবরের বিতর্কিত গণভোটের পর থেকে স্পেন উত্তাল অবস্থায় রয়েছে।

গতকাল বুধবার স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফনসো দাসিতস বলেন, পুজেমনের পদক্ষেপে অর্থনৈতিক ও সামাজিক অস্থিরতা তৈরি হতে পারে।

মঙ্গলবার কাতালোনিয়ার প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজেমন বলেন, গণভোটের ফলাফলের পরিপ্রেক্ষিতে স্বায়ত্তশাসিত এই অঞ্চলটির স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়ার অধিকার রয়েছে। কিন্তু তিনি যুক্তিগ্রাহ্য সংলাপের প্রস্তাব দিচ্ছেন।

পুজেমনের মঙ্গলবারের ভাষণের আগ দিয়ে তাঁকে স্বাধীনতার ঘোষণা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছিলেন বার্সেলোনার মেয়র আদা কোলাউ ও ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক।

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন জানিয়ে দিয়েছে, কাতালোনিয়া স্পেন ছেড়ে গেলে আর জোটের সদস্য থাকবে না।

প্রসঙ্গত, কাতালোনিয়ার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গণভোটে স্বাধীনতার পক্ষে ৯০ শতাংশ ভোটার সমর্থন দিয়েছে। ভোট পড়েছে ৪৩ শতাংশ। বলা হচ্ছে, স্বাধীনতাবিরোধী ভোটাররা ভোটদানে বিরত ছিল। স্পেনের বিচারমন্ত্রী রাফায়েল কাতালা কেন্দ্রীয় সরকারের অবস্থানের কথা পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, গণভোট অবৈধ এবং এর ফলাফলও বাতিল করা হয়েছে। এদিকে আবার ভোটের দিনে ভোটারদের ঠেকাতে কেন্দ্রীয় সরকারের পুলিশ বাহিনীর দপনপীড়নে কাতালনবাসীর মনে ক্ষোভ জন্মেছে। এত কিছু সত্ত্বেও স্পেনের বিভিন্ন শহরের পাশাপাশি কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনাতেও জাতীয় ঐক্যের দাবিতে গত রোববার ব্যাপক মিছিল সমাবেশ হয়।

Be the first to comment on "‘স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন নাকি করেননি, পরিষ্কার করুন’"

Leave a comment

Your email address will not be published.




4 × three =