আত্মঘাতী গোলে বিদায় যুক্তরাষ্ট্রের

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ঘটন-অঘটনের খেলা কম হয় নি। তবে সবচেয়ে বড় অঘটনটি বোধ হয় ঘটিয়ে দিল ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো। দশবার বিশ্বকাপ খেলা যুক্তরাষ্ট্রকে ২-১ গোলে হারিয়ে কনক্যাকাফ অঞ্চল থেকে ছিটকে দিয়েছে তারা।

বিশ্বকাপে যুক্তরাষ্ট্রের নামটা বেশ পরিচিতই। সর্বশেষ সাত আসরেই মূলপর্বে খেলেছে তারা। এবারও পথটা কঠিন ছিল না। বাছাইপর্বের শেষ ম্যাচে দুর্বল ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর বিপক্ষে ড্র করলেও বিশ্বকাপে জায়গা হতো। সহজ কাজটাও তারা পারল না, ১৯৮৬ সালের পর প্রথমবারের মত ছিটকে গেল বিশ্বকাপ থেকে।

দিনটা যুক্তরাষ্ট্রের ছিল না একেবারেই। ম্যাচের সপ্তম মিনিটে সহজতম এক সুযোগ মিস করে বসেন দলটির স্ট্রাইকার জজি আলতিডোর। এর মধ্যে ১৭তম মিনিটে ওমর গঞ্জালেসের আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে তারা।

২০ মিনিট পর ঘরের মাঠে ব্যবধানটা দ্বিগুণ করে ফেলেন ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর আলভিন জোন্স। এরপর একটি গোল শোধ করতে পারলেও ড্র বা জয় নিয়ে মাঠ ছাড়া সম্ভব হয়নি যুক্তরাষ্ট্রের।

আত্মঘাতী গোলে দলকে পিছিয়ে দেয়া ওমর গঞ্জালেস এই দিনটির কথা কিছুতেই ভুলতে পারবেন না। হতাশ ভগ্নহৃদয় নিয়ে তিনি ম্যাচ শেষে বলেন, ‘আমি কখনো ভাবতে পারিনি এই দিনটা দেখতে হবে। এটা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে খারাপ দিন। আমাদের আজ উদযাপন করার কথা। আমি, আমি জানি না কি বলা উচিত। এটা ভয়ানক। আমরা আজ পুরো জাতির মাথা নত করে দিয়েছি।’

Be the first to comment on "আত্মঘাতী গোলে বিদায় যুক্তরাষ্ট্রের"

Leave a comment

Your email address will not be published.




three × one =