ব্র্যাক ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সৈকত রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : ব্র্যাক ব্যাংকের শ্যামলী শাখার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা নাইমুল ইসলাম সৈকত রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে ব্যাংকের শ্যামলী শাখা থেকে গুলশানে যাওয়ার সময় তিনি নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় বুধবার তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা সূত্র জানায়, সৈকত এর সর্বশেষ অবস্থান ছিল নিকেতন এলাকায়। এরপর  থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। শিল্পাঞ্চাল থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান, তারা সৈকতকে খুঁজে বের করতে কাজ শুরু করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ব্যাংকে চাকরি করার পাশাপাশি বিভিন্ন জনের কাছে থেকে টাকা নিয়ে সে ব্যবসা করত। অনেকে তার কাছে টাকা পায়। এ বিষয়টিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

ওসি জানান, গত দুই দিনে মুক্তিপণ চেয়ে কেউ সৈকতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। পুলিশ বিভিন্ন মাধ্যমে সৈকতের বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছে। সৈকতের ভগ্নিপতি জামাল উদ্দিন জানান, ব্যাংকের কাজে গত মঙ্গলবার সকালে শ্যামলী থেকে বের হন সৈকত। এরপর দুপুর সোয়া ১২টার দিকে স্ত্রী তামান্না খান তন্নীর সঙ্গে তার কথা হয়। তখন তিনি গুলশানে যাওয়ার কথা জানান। পরে বিকাল ৪টার দিকে তন্নী খোঁজ নিতে গেলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পান। পরের দুই ঘণ্টাতেও তার খোঁজ না পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন স্বজনরা। একপর্যায়ে মোবাইল ফোন প্রযুক্তির মাধ্যমে তার অবস্থান জানার চেষ্টা করা হয়। তাতে দেখা যায়, সর্বশেষ দুপুর সোয়া ২টায় তিনি নিকেতনে ছিলেন। জানা গেছে, সৈকতের গ্রামের বাড়ি বরিশালে। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম। তিনি রাজধানীর মিরপুর ২ নম্বর এলাকায় তিনি পরিবার নিয়ে থাকেন। দেড় বছর ধরে তিনি ব্র্যাক ব্যাংকে চাকরি করছেন।

 

Be the first to comment on "ব্র্যাক ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সৈকত রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ"

Leave a comment

Your email address will not be published.




8 − 7 =