প্রাথমিকের দফতরিদের চাকরি নিয়ে হাইকোর্টের রুল

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে কর্মরত একশ ৮৫ জনের চাকরি কেন রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আলাদা দুটি রিট আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের পৃথক দুটি বেঞ্চ এই রুল জারি করেন। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি আশিষ রঞ্জন দাসের হাইকোর্ট বেঞ্চ ঢাকার সুত্রাপুরের লালচান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মো. মজিবুর রহমানসহ একশ ৫৫ জন এবং বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ পিরোজপুরের অনুতোস দাস, রাব্বী তালুকদারসহ ৩০ জনের বিষয়ে রুল জারি করেন। রিট আবেদনকারীদের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া, নাসিরউদ্দিন খান সম্রাট।

সরকার ২০১২ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী নিয়োগের জন্য নীতিমালা তৈরি করে। এরপর সারাদেশে ৩৬ হাজার ৯৮৮টি পদ সৃষ্টির মাধ্যমে সংশ্লিষ্টদের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হয়। এ অবস্থায় রাজস্ব খাতে স্থানান্তর চেয়ে সংশ্লিষ্টরা রিট আবেদন করেন। ওই রিটের শুনানিতে আদালত এই আদেশ দিলেন।

Be the first to comment on "প্রাথমিকের দফতরিদের চাকরি নিয়ে হাইকোর্টের রুল"

Leave a comment

Your email address will not be published.




9 + 13 =