বাগেরহাট-সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিনিয়োগের আগ্রহ ভারতের

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : বাগেরহাটে খান জাহান আলী বিমানবন্দর নির্মাণ ও সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিনিয়োগে আগ্রহ জানিয়েছে ভারত।

রবিবার সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা এ আগ্রহের কথা জানান। বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে বিনিয়োগ ও বাণিজ্যে বাংলাদেশের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এ সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে দু’দেশই লাভবান হতে পারে। এ সময় হাইকমিশনার মনিপুরের ইম্পলে অনুষ্ঠিতব্য নর্থ ইস্ট সামিটের বিষয়ে মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেন।

বিমানমন্ত্রী বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট বিশেষ করে পেট্রাপোল সীমান্তে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও মাল্টিপল ভিসাধারীদের ক্ষেত্রে সৃষ্ট জটিলতা দ্রুত নিরসনের বিষয়টি তুলে ধরলে হাইকমিশনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন।

হর্ষ বর্ধন দু’দেশের মধ্যে আকাশপথে যোগাযোগ বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ১৯৭৮ সালে স্বাক্ষরিত এয়ার সার্ভিস এগ্রিমেন্ট (এএসএ) রিভিউয়ের কথা জানালে রাশেদ খান মেনন এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন।

খান জাহান আলী বিমানবন্দর নির্মাণ ও সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিনিয়োগের আগ্রহ জানিয়ে হাইকমিশনার বলেন, এর মাধ্যমে দুই দেশের আকাশ ও সমুদ্রপথে বিনিয়োগ, বাণিজ্য ও পর্যটনে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

এ ছাড়াও বৈঠকে ঢাকা-গৌহাটি-বাগডোগরা রুটে দ্রুত বিমান যোগাযোগ চালুর বিষয়টিও আলোচিত হয়। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

Be the first to comment on "বাগেরহাট-সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিনিয়োগের আগ্রহ ভারতের"

Leave a comment

Your email address will not be published.




16 − three =