ধর্ষণের ফলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের ফলে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে।

 

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এটিএম সিফাতুল মাজদার জানান, চিলারং ইউনিয়নের আরাজি পাহাড়ভাঙ্গা উদগাড়ি গ্রামের খমির উদ্দীনের ছেলে রবিউল ইসলাম (২২) তাকে প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করেন।

ঘটনা জানার পর মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীকে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক নিশা মর্তুজা রূপা বলেন, “ওই ছাত্রী এখন চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।”

ছাত্রীর নানার ভাষ্য, তার নাতি লজ্জায় ধর্ষণের কথা কাউকে বলেনি। পরিবারের সদস্যরা টের পেরে ঘটনা উদঘাটন করেন। পরে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা বিয়ে দিয়ে মীমাংসার চেষ্টা করেন। কিন্তু রবিউল গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গেছেন।

পরিদর্শক সিফাতুর মাজদার এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে বলেন, পুলিশ সুপার ফারহাত আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেওয়ান লালন আহমেদসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতালে গিয়ে ওই ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন।

Be the first to comment on "ধর্ষণের ফলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা"

Leave a comment

Your email address will not be published.




four − three =