চিটাগং ভাইকিংসের সংগ্রহ ১৪৩

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : প্রতিবার বেশ শক্তিশালী দল গড়েও খুব ভালো ফল পায়নি বন্দরনগরীর দল চিটাগং ভাইকিংস। এবার তো দলই বিক্রি করে দিতে চেয়েছিল মালিক পক্ষ। শেষ পর্যন্ত অন্য দলগুলোর চেয়ে তুলনামূলক দুর্বল দল গড়ে চিটাগং। দুর্বল এই দলটি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরের প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৪৩ রান তুলেছে।

টস জিতে কুমিল্লার অধিনায়ক মোহাম্মদ নবি চিটাগংকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান। ওপেন করতে এসে লুক রনকির মারমুখী ব্যাটিং দেখে মনে হচ্ছিলো রান গিয়ে থামবে ১৭০/১৮০ তে। রনকি মারমুখী থাকলেও আরেক ওপেনার সৌম্য সরকার খেলছিলেন ধীরে-সুস্থে।

এ দুই ওপেনার মিলে দ্রুত গড়ে ফেলেন ৬৩ রানের জুটি। ভয়াবহ মারমুখি হয়ে ওঠেন রনকি। মোহাম্মদ নবির বলে আউট হবার আগেই ২১ বলে ৩ ছয় ও চার চারের সাহায্যে ৪০ রান করে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান।

এরপরই ভাইকিংসদের ব্যাটিংয়ে ছন্দপতন হয়। সৌম্য সরকার ও দিলশান মুনাবিরা ৩৮ রানের একটি ছোট জুটি গড়লেও সেটা খুব বেশি কাজে দেয়নি। মুনাবিরাকে ২১ রানে ব্রাভো ফেরালে বেশ চাপেই পরে যায় চিটাগং।

এরপর চিটাগং এর উপর আরও বেশি চাপ তৈরি করতে সক্ষম হয় কুমিল্লার পেসার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন একই ওভারে সৌম্য সরকার (৩৮) ও এনামুল বিজয়কে (৩) সাজঘরে ফেরান। এরপর চট্টগ্রামের কোন ব্যাটসম্যানই আর তেমন উল্লেখযোগ্য কিছু করতে পারেননি।

কুমিল্লার উদীয়মান পেসার সাইফুদ্দিন ৪ ওভার বল করে ২৪ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নিয়েছেন। আর ব্রাভো নিয়েছেন ২টি উইকেট। আল-আমিন ও মোহাম্মদ নবী ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।

কুমিল্লার এটি দ্বিতীয় ম্যাচ। প্রথম ম্যাচে তারা সিলেটের সাথে হেরে অনেকটা ব্যাকফুটে রয়েছে। ফলে জয়ের বিকল্প কিছুই ভাবছে না। আর অপরদিকে চিটাগং এর আজ প্রথম ম্যাচ, তাই তারাও জিতে এগিয়ে যেতে চাচ্ছে।

Be the first to comment on "চিটাগং ভাইকিংসের সংগ্রহ ১৪৩"

Leave a comment

Your email address will not be published.




twenty − 9 =