পাবনায় দুই বাসের সংঘর্ষে নারীসহ ৭ জন নিহত

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : পাবনা-ঢাকা মহাসড়কের সাঁথিয়া উপজেলার বহলবাড়িয়া নামক স্থানে দুইটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারীসহ ৭ জন নিহত এবং কমপক্ষে ৪০ আহত হয়েছেন। রোববার দুপুর ১টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৫ জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে।

নিহতরা হলেন সাঁথিয়ার বৃহস্পতিপুর গ্রামের মকবুলের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৩৭), পাবনা সদরের ভাঙাবাড়িয়ার সোবাহানের ছেলে লিটন (৪০), সুমি ট্যাভেলসের ড্রাইভার রিপন (৫০), গাজীপুর সদর উপজেলার মৃত গফুরের ছেলে আয়েত আলী বিশ্বাস (৬০) ও কাওসার (৩৮)।

পাবনার অতিরিক্তি পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, পাবনা থেকে সুমী পরিবহনের যাত্রীবাহি একটি বাস কাশিনাথপুরের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে সাঁথিয়া উপজেলার বহলবাড়িয়া নামক স্থানে বিপরীত দিক থেকে আসা শাহ-নকিব পরিবহনের যাত্রীবাহি অপর একটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৫ জন এবং হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও ২ যাত্রী নিহত হন।

খবর পেয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতদের লাশ উদ্ধার এবং আহতদের উদ্ধার করে সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশ দুর্ঘটনা কবলিত বাস দুটিকে রাস্তা থেকে সরিয়ে নিলে এক ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

আতাইকুলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রানা জানান, উদ্ধার কাজ শেষ হয়েছে। নিহতদের লাশ মুধাপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে।

Be the first to comment on "পাবনায় দুই বাসের সংঘর্ষে নারীসহ ৭ জন নিহত"

Leave a comment

Your email address will not be published.




10 + 7 =