ঢেঁড়সের পুষ্টিগুণ

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : ঢেঁড়সে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি ও সি। এছাড়াও পর্যাপ্ত পরিমানে আয়োডিন, ভিটামিন এ ও বিভিন্ন খনিজ পদার্থ বিদ্যমান রয়েছে। ঢেঁড়স নিয়মিত খেলে গলাফোলা রোগ হবার সম্ভাবনা থাকে না এবং এটা হজম শক্তি বৃদ্ধিতেও সহায়তা করে। ঢেঁড়সে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম,ম্যাগনেসিয়াম,ফসফরাস ও আয়রন রয়েছে।

ঢেঁড়সে রিবোফ্লাবিনের পরিমাণ বেগুন, মুলা ও টমেটোর চেয়ে বেশি আছে। এটা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। পেটের প্রস্রাব ও পায়খানা পরিষ্কার করতে ঢেঁড়শের অনেক গুণ । খুসখুসে কাশিতেও উপকার করে এই সবজিটি। হজমশক্তি বাড়ায়, বাতের প্রকোপ কমায়। ডায়বেটিসের জন্য অনেক উপকারী। প্রোস্টেট গ্ল্যান্ডের ক্ষরণ দূর করে এই ঢেঁড়স।

ঢেঁড়সের মধ্যে রয়েছে অনেক ঔষধি গুণ। এ সবজি ভিটামিন ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’ ও লোহাসমৃদ্ধ। ঢেঁড়সে প্রতি ১০০ গ্রামে ভক্ষণযোগ্য অংশে আমিষ (১.৮ গ্রাম), ভিটামিন-সি (১৮ মিলিগ্রাম), খনিজ পদার্থ বিশেষ করে ক্যালসিয়াম (৯০ মিলিগ্রাম), লোহা (১ মিলিগ্রাম) ও আয়োডিন রয়েছে। প্রতি ১০০ গ্রাম ঢ্যাঁড়সে পাবেন শক্তি ৩৩ কিলোক্যালরি, কার্বোহাইড্রেটস ৭.০৩ গ্রাম, প্রোটিন ২ গ্রাম, ফ্যাট ০.১ গ্রাম, খাদ্যআঁশ ৩.২ গ্রাম, ফোলেট ৮৮ মাইক্রোগ্রাম, নিয়াসিন ১ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ২১.১ মিলিগ্রাম, ভিটামিন এ ৩৭৫ আইইউ, ভিটামিন ই ০.৩৬ মিলিগ্রাম, ভিটামিন কে ৫৩ মাইক্রোগ্রাম, সোডিয়াম ৮ মিলিগ্রাম, পটাসিয়াম ৩০৩ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ৮১ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেসিয়াম ৫৭ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ৬৩ মিলিগ্রাম, জিংক ০.৬০ মিলিগ্রাম, ক্যারটিন-বি ২২৫ মাইক্রোগ্রাম, লুটেইন ৫১৬ মাইক্রোগ্রাম। এতোসব উপকারী উপাদান সমৃদ্ধ সুলভ এই সবজি নিয়মিত শোভা পেতে পারে আপনার খাবারের এক কোণে।

Be the first to comment on "ঢেঁড়সের পুষ্টিগুণ"

Leave a comment

Your email address will not be published.




1 × five =