বিচারপতি সিনহার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধান হবে : আইনমন্ত্রী

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে যেসব দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে, তার অনুসন্ধান হবে এবং তা দুদকের মাধ্যমে করা হবে বলে ইংগিত দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। অনুসন্ধানে সত্যতা পাওয়া গেলে আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন।
আজ রবিবার দুপুর ১২টায় আইন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

আইনমন্ত্রী প্রধান বিচারপতির অসুস্থতা, ছুটি চাওয়া, বিদেশ যাওয়ার অনুমতি চাওয়াসহ বিভিন্ন বিষয় সংক্রান্ত সব আবেদন ও চিঠিপত্র পড়ে শোনান। তিনি বলেন, এসব আবেদন ও চিঠিপত্রে প্রধান বিচারপতি তাঁর অসুস্থতার কথা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করেছেন। ‘কিন্তু বিদেশ যাওয়ার আগে তিনি বলেছেন তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। তাঁর এ বক্তব্যে আমি হতভম্ব।’

আইনমন্ত্রী বলেন, প্রধান বিচারপতি ছুটি ও বিদেশ যাওয়া নিয়ে বিতর্কের যুক্তিসংগত কোনো কারণ নেই। রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এটি করা হয়েছে।

প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও তাঁকে বিদেশে যেতে দেওয়া হলো কেন—এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, অভিযোগ থাকলে সেটা মামলা মোকদ্দমা পর্যন্ত গড়াতে একটা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। তিনি এখনো বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি। তাঁকে বিদেশে যেতে দেওয়ায় কোনো অনিয়ম বা নীতিগত সমস্যা হয়নি।

প্রধান বিচারপতি বিদেশ যাত্রার প্রাক্কালে তাঁর বিবৃতিতে বলেছেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সুপ্রিম কোর্টের প্রশাসনিক বিষয়ে কোনো কাজ করতে পারেন না। এটি সঠিক কিনা জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, এটি সঠিক নয়। সংবিধানের ৯৭ ধারা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাকে অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে যে প্রধান বিচারপতির এই বক্তব্য আইনসংগত নয়।

রাষ্ট্রপতির কাছে প্রধান বিচারপতির লেখা চিঠির সত্যতা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে যে আলোচনা হচ্ছে, সে বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমি সেই চিঠি গণমাধ্যমের কাছে তুলে ধরেছি। সেই চিঠি এবং তাঁর বক্তব্য মিথ্যা নয়। যারা সেটিকে মিথ্যা বলতে চাইছে সেসব অর্বাচীনকে আমি বলব-মিথ্যা কথা বলা আমার পেশা নয়, অভ্যাসও নেই।’

প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অনুসন্ধানে প্রমাণিত হলে তাঁর বিচারের প্রক্রিয়া কী হবে? কারণ সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল কার্যকর নয় বলে সরকার মনে করে আর সংসদের হাতেও বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা যায়নি।

এ ক্ষেত্রে কী হবে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, এ ক্ষেত্রে একটা শূন্যতা আছে, তবে রাষ্ট্রপতির কিছু নিজস্ব ক্ষমতা আছে। অভিযোগ সম্পর্কে তদন্ত হবে, তারপর আইন অনুযায়ী কার্যক্রম চলছে।

Be the first to comment on "বিচারপতি সিনহার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধান হবে : আইনমন্ত্রী"

Leave a comment

Your email address will not be published.




four × 2 =