৯০ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ

Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে ৪২৪ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাব দিতে নেমে ৯০ রানেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। ফলে পরাজয় বরণ করতে হলো ৩৩৩ রানের বিশাল ব্যবধানে। প্রোটিয়াদের পেস এবং স্পিন ঘূর্ণিতে নাকাল হতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

৪১ রানের মধ্যে শেষ ৭ উইকেট হারিয়েছে সফরকারীরা। ম্যাচটি যে জেতা কিংবা ড্র করা অসম্ভব ব্যাপার তা আগেই বোঝা গিয়েছিল। তবে পঞ্চম দিনে ব্যাটিং প্র্যাকটিসটা সেরে নিতে পারত টাইগার ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু সেটা হলো না। কাগিসো রাবাদা আর কেশব মহারাজ সেই সুযোগটাই যে দিলেন না! দুজনে মিলেই শেষ ৭ উইকেট তুলে নিলেন আজ।
৩ উইকেটে ৪৯ রান নিয়ে পঞ্চম দিন শুরু করেছিল বাংলাদেশ। পঞ্চম দিনের শুরুতেই রাবাদার বলে ফিরেন টাইগার ক্যাপ্টেন মুশফিকুর রহিম (১৬)। রাবাদার বলটিতে বাড়ি বাউন্স ছিল।
ব্যাট বাড়িয়ে মারতে গেলেন মুশফিক। স্লিপে মাথার ওপর থেকে দারুণ ক্যাচ নিলেন হাশিম আমলা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই ব্যর্থ হলেন কিপিং ছেড়ে ৪ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা মুশফিক।
ওই মুহূর্তে ঘুরে দাঁড়ানোর পরিবর্তে কাগিসো রাবাদার দুর্দান্ত এক বলে বোল্ড হয়ে যান সাকিবের অনুপস্থিতিতে টেস্ট দলে সুযোগ পাওয়া মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ (৯)। রিয়াদের বিদায়ের কিছু পরেই সেই রাবাদাই প্যাভিলিয়নে পাঠান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান লিটন দাসকে। এলবিডাব্লিউ হওয়ার আগে তার সংগ্রহ মাত্র ৪ রান। কিপিংটা দুর্দান্ত করলেও ব্যাটিংটা মোটেও ভালো হলো না লিটনের।
কেশব মহারাজের বলে এলবিডাব্লিউ হওয়ার আগে সাব্বির রহমানও ৪ রানের বেশি করতে পারেননি। তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ৪ রান করে মহারাজের তৃতীয় শিকার হন তাসকিন আহমেদ। কেশব মহারাজ তাসকিনকেও লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে ফেলেন। শফিউল ইসলাম রানআউট হলে নবম উইকেটের পতন হয় বাংলাদেশের।
রান বাড়ানোর জন্য কিছুটা হাত খুলে খেলছিলেন অল-রাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু তার সঙ্গী ছিল না। মু্স্তাফিজকে নিয়ে শেষ উইকেটে ১২ রান তুলে ফেলেন তিনি। মুস্তাফিজকে (১) কেশব মহারাজ কট অ্যান্ড বোল্ড করে দিলে ৯০ রানেই থামে বাংলাদেশ। ১৫ রানে অপরাজিত থাকেন মেহেদী মিরাজ। কেশব মহারাজ ৪টি, রাবাদা ৩টি এবং মরকেল ২টি উইকেট নিয়েছেন। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর করেছেন ইমরুল কায়েস (৩২)।

যে উইকেটে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা ব্যাট করতে নামলে হয়ে যায় ব্যাটিং উইকেট, সেখানে বাংলাদেশ ব্যাট করতে নামলে হয়ে যায় বোলিং উইকেট। যে উইকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা ব্যাট করতে নেমে ৫০০ রানের কাছাকাছি স্কোর নিয়ে যায়, সেখানে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা ১০০ রানও করতে পারে না।

পচেফস্ট্রমের সেনউইজ পার্ক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের পরাজয় অনেকটাই নিশ্চিত ছিল। তবে এতটা শোচনীয় পরাজয় কেউ প্রত্যাশা করেনি। পঞ্চম দিন চতুর্থ ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের স্ট্রাগল করতে হবে- এটা ছিল জানা কথা; কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা এতটা অসহায় আত্মসমর্পণ করবে প্রোটিয়া বোলারদের সামনে- তা ছিল একপ্রকার অবিশ্বাস্য বিষয়।

Be the first to comment on "৯০ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ"

Leave a comment

Your email address will not be published.




five × 1 =